মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

মদন উপজেলার পটভূমি

প্রাকৃতিক স্নিগ্ধতায় রঞ্জিত হাওড়-বাওর ও মগড়া, জেলাই, কৈজানী প্রভৃতি নদী নালায় বেষ্টিত সূফী সাধক সৈয়দ আহাম্মদ বসরী (র:) এর স্মৃতি বিজড়িত, ঐতিহাসিক সমৃদ্ধি নিযে মদন থানা নেত্রকোণা জেলার অন্যান্য থানাগুলো থেকে স্বতন্ত্র।ভোগলিক পরিবেশে খালিয়াজুরী, আটপাড়া, কেন্দুয়া থেকে পৃথক না হলেও বৈচিত্রতায় অনেক ব্যবধান লক্ষ্য করে এ থানাটি। পূর্ব ইতিহাস লক্ষ্য করলে দেখা যায় খালিয়াজুরী ও কেন্দুয়ার ঐতিহাসিক গবেষণার অন্তর্গত মদন থানার বিভিন্ন স্থান। সে সময়কার ঐ স্থানগুলোর বর্ধিঞ্চু গ্রাম মদন। ১৯৭০ খৃষ্টাব্দে দেশের আঞ্চলিক শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষার্থে ময়মনসিংহের জেলা কালেক্টর যে সকল স্থান গুলোতে থানা স্থাপনের অনুমতি প্রার্থণা করেছিলেন, তন্মোর্ধে পরগনা নাসিরুজিয়ালের জন্য মদন একটি, কিন্তু সেটি রেভেনিউ বোর্ড নামঞ্জুর করলে বর্তমান মদন থানা ভূক্ত ফতেপুর নামক স্থানে ১৮৪৫ খৃষ্টাব্দে থানা স্থাপনের প্রস্তাব প্রেরিত হয়। নিকলী, বাজিতপুর, ফতেপুর ও মাদারগঞ্জ এ চারটি থানা নিয়ে হোসেনপুর বা নিকলী মহকুমা স্থাপনের প্রস্তাব ছিল।এই ফতেপুরেই ঈসা খাঁর পরিষদ দেওয়ান মসহিদ জালারে বংশধর ফতেইয়ার খাঁর আবাস্থল। এই ফতেইয়ার খাঁর নামানুসারের স্থানের নামকরণ হয় ফতেপুর। তৎরূপ একই বংশের দেওয়ান জাহাঙ্গীরের নামানুসারে মদন থানার জাহাঙ্গীরপুর নামক গ্রামের নামকরণ হয়েছে।

                                      সাম্প্রতিক ঐতিহাসিক গবেষণায় দেখা যায়, হোসেনপুর বা নিকলী মহকুমা স্থাপনের জন্য ফতেপুর থানা স্থাপনের প্রস্তাব থাকলে ও অবস্থানগত কারণে ও প্রশাসনিক কারণেই তা বাস্তবায়ন হয়নি। ১৮৮৪ সালে কেন্দুয়ার পুলিম প্রশাসক কেন্দ্র স্থাপনের পর বর্তমান মদন থানা অঞ্চলের আখাশ্রী গ্রামে কেন্দুয়ার একটি ফাঁড়ি থানা স্থাপিত হয়। সে সময় মদন ও ফতেপুর ব্যবসাকেন্দ্র হিসেবে বিবেচিত ছিল। মদন সম্পর্কে কথিত আছে, মদনা নামক এক সামন্ত ভূ-স্বামীর নামানুসারে মদন নামের উদ্ভব। এ নামকরণে অনেক মতদ্বৈততা রয়েছে। কোন কোন ঐতিহাসিক মনে করেন যে পারস্যবাসীদের এ অঞ্চআেগমণকালে মুদন বা মদন নামের উদ্ভব। ফার্সী শব্দ মুদন এর বঙ্গার্থ শহর বা নগর। সেই থেকেই মুদন, পরে শব্দের অপভ্রম্যতার মদন নামে পরিচিত। অপরদিকে ফার্সী শব্দ মদন বলতে প্রতিষ্ঠিত হওয়া বা দন্ডায়মান হওয়াকে বুঝায়। কালের প্রবাহে মদনের গুরুত্ব বাড়তে থাকলে যোগাযোগসহ শাসন প্রকৃয়াকে কাছে টেনে আনার লক্ষ্যে নায়েকপুরের আখাশ্রী থেকে কেন্দুয়ার পুলিশ ফাঁড়ি উঠিয়ে ৯৯ বর্গ মাইল এলাকা নিয়ে খালিয়াজুরী, আটপাড়া ও কেন্দুয়া থানার মোট ১৩১ টি গ্রাম নিয়ে ১৯১৭ সালের ৩১ শে ডিসেম্বর মদন থানা প্রতিষ্ঠা লাভ করে। ১৯৬২ সালে ৮টি ইউনিয়ন নিয়ে মদন সার্কেল উন্নয়ন ও রাজস্ব অফিস প্রতিষ্ঠা লাভ করে। ১৯৮৩ সালে মদনকে মান উন্নীত থানা এবং পরে উপজেলায় রূপান্তর করা হয়।