মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

উপজেলার ঐতিহ্য

 

প্রাকৃতিক স্নিগ্ধতায় রঞ্জিত হাওড়-বাওর ও মগড়া, জেলাই, কৈজানী প্রভৃতি নদী নালায় বেষ্টিত সূফী সাধক সৈয়দ আহাম্মদ বসরী (র:) এর স্মৃতি বিজড়িত, ঐতিহাসিক সমৃদ্ধি নিযে মদন থানা নেত্রকোণা জেলার অন্যান্য থানাগুলো থেকে স্বতন্ত্র।ভোগলিক পরিবেশে খালিয়াজুরী, আটপাড়া, কেন্দুয়া থেকে পৃথক না হলেও বৈচিত্রতায় অনেক ব্যবধান লক্ষ করে এ থানাটি।

পূর্ব ইতিহাস লক্ষ্য করলে দেখা যায় খালিয়াজুরী ও কেন্দুয়ার ঐতিহাসিক গবেষণার অন্তর্গত মদন থানার বিভিন্ন স্থান। সে সময়কার ঐ স্থানগুলোর বর্ধিঞ্চু গ্রাম মদন। ১৯৭০ খৃষ্টাব্দে দেশের আঞ্চলিক শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষার্থে ময়মনসিংহের জেলা কালেক্টর যে সকল স্থান গুলোতে থানা স্থাপনের অনুমতি প্রার্থণা করেছিলেন, তন্মোর্ধে পরগনা নাসিরুজিয়ালের জন্য মদন একটি, কিন্তু সেটি রেভেনিউ বোর্ড নামঞ্জুর করলে বর্তমান মদন থানা

ভূক্ত ফতেপুর নামক স্থানে ১৮৪৫ খৃষ্টাব্দে থানা স্থাপনের প্রস্তাব প্রেরিত হয়। নিকলী, বাজিতপুর, ফতেপুর ও মাদারগঞ্জ এ চারটি থানা নিয়ে হোসেনপুর বা নিকলী মহকুমা স্থাপনের প্রস্তাব ছিল।এই ফতেপুরেই ঈসা খাঁর পরিষদ দেওয়ান মসহিদ জালারে বংশধর ফতেইয়ার খাঁর আবাস্থল। এই ফতেইয়ার খাঁর নামানুসারের স্থানের নামকরণ হয় ফতেপুর। তৎরূপ একই বংশের দেওয়ান জাহাঙ্গীরের নামানুসারে মদন থানার জাহাঙ্গীরপুর নামক গ্রামের নামকরণ হয়েছে।

১৮৮৪ খ্রিস্টাব্দে কেন্দুয়ায় পুলিশ প্রশাসন কেন্দ্র স্থাপনের বর্তমান মদন উপজেলার আখশ্রী গ্রামে কেন্দুয়া থানার একটি ফাড়ি স্থাপিত হয়েছিল। সে সময় মদন ও ফতেপুর ব্যবসা কেন্দ্র হিসেবে বিবেচিত ছিল।

কালের প্রবাহে মদনের গুরুত্ব বাড়তে থাকে। এতে যোগাযোগসহ শাসন প্রক্রিয়ারও পরিবর্তন আসে। নায়েকপুরে আখশ্রী থেকে ফাড়ি থানা প্রত্যাহার করা হয় এবং পূর্ণাংগ থানা স্থাপন করার প্রক্রিয়া হয়। খালিয়াজুরী, আটপাড়া ও কেন্দুয়ার ১৩১টি গ্রাম নিয়ে ১৯১৭ সালের ৩১ ডিসেম্বর মদন থানা প্রতিষ্ঠা লাভ করে।No. 417.  P.J. Dated 14th December 1918 প্রজ্ঞাপনমূলে মদন থানাকে পুলিশ বিভাগ অনুমোদন প্রদান করে।

১৯৬২ খ্রিষ্টাব্দে মদন থানায় সার্কেল উন্নয়ন ও রাজস্ব বিভাগ খোলা হয়। ১৯৮৩ খ্রিষ্টাব্দে মদনকে উপজেলায় উন্নীত করা হয়।  ৯১ বর্গমাইল আয়তনে ৮টি ইউনিয়ন নিয়ে মদন উপজেলার কার্যক্রম চলছে। ১১ জুলাই ২০০১ সালে মদন থানা সদরকে পৌরসভায় উন্নীত করা হয়।

 

মহুয়া মলুয়ার দেশ খ্যাত নেত্রকোণা জেলার মদন উপজেলার সাধারণ মানুষ খুবই সাংষ্কৃতিকমনা। এ উপজেলায় নৌকা বাইচ, ষাড়ের লড়াই, বাউলগান, যাত্রা, নাটক বছরের বিভিন্ন সময় পালাক্রমে অনুষ্ঠিত হয়।